14 July- 2024 ।। [bangla_date]


ঝালকাঠি বিআরটিএ অফিসে লাইসেন্স আবেদনের ফাইল চলে যায় দালালের কাছে অভিযোগ অস্বিকার কর্তৃপক্ষের

দূরযাত্রা রিপোর্ট ॥ ঝালকাঠি বিআরটিএ অফিসে লাইসেন্স আবেদন করলে ফাইল চলে যায় দালালের কাছে। আবেদনকারিকে জানানো হয় আপনার আবেদনপত্রে সব কাগজ নেই। আপনি এই নম্বরে যোগাযোগ করেন। আমি সব ওকে করে ড্রাইভিং লাইসেন্স করিয়ে দিব। এমনই এক দালাল ঝালকাঠির বিআরটিএ অফিসে বেশ পরিচিত নজরুল ইসলাম। পটুয়াখালির এই ব্যক্তি ঝালকাঠিতে এখন বিআরটিএ অফিসে দালালি করে ড্রাইভিং লাইসেন্স করিয়ে দিচ্ছে। অফিসে তার প্রবেশ নিষেধ থাকলেও বাস্তবতা ভিন্ন। তার অফিসে অবাধ বিচরন। এমনকি অফিসে রক্ষিত আবেদনকারির ফাইল ও কাগজপত্র নিয়ে বাইরে কাজ সেরে আবার দিয়ে যান। সব কিছুই ওপেন সিক্রেট। কিন্তু তারপরেও কর্তৃপক্ষ এই চিহ্নিত নজরুলের বিরুদ্ধে অদ্যাবধি কোন আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়নি।
বরিশালের একজন প্রাইভেট গাড়ি চালক মো. সোহেল চৌধুরী। গতকাল সোমবার তিনি আসেন ঝালকাঠিতে দালাল নজরুলের সাথে দেখা করতে। উদ্দেশ্য লাইসেন্স করিয়ে দেয়ার কথা বলে এ পর্যন্ত মোট ১২ হাজার ৫শত টাকা নিয়ে হয়রানী করছে। কিন্তু লাইসেন্স দিচ্ছেনা। গাড়ি চালক সোহেল জানান, গত বছর আমি ঝালকাঠি বিআরটিএ ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করি। এর ২ মাস পর নজরুল আমাকে ফোন দিয়ে জানায় আমার আবেদনে ত্রুটি থাকায় নীচে পরে আছে। তারপর আমি ঝালকাঠি এসে তার সাথে বিআরটিএ অফিসে দেখা করি। এডি স্যারের রুমে প্রবেশের আগে বড় রুমে তার সাথে কথা হয়। তখন অফিসের একজন স্টাফ যিনি এখনো আছেন (নাম অজ্ঞাত) তিনি আমাকে বলেছে নজরুল আরেক জনের পরিবর্তে আসছে। তার সাথে যোগাযোগ করতে বলেন। এরপর এতোদিন পরেও নজরুল আমাকে লাইসেন্স না দিয়ে হয়রানী করছে। এ পর্যন্ত সে অফিস, ডোভ টেষ্ট ও ব্যাংক খরচ মিলেয়ে আমার কাছ থেকে মোট ১২ হাজার ৫শত টাকা নিয়েছে। সোমবার তাকে ঝালকাঠি এনআরবিসি ব্যাংকের সামনে পেয়ে ধরে অফিসে নিয়ে যাই। তখন আমিসহ আরো ২ জনের সামনে নজরুল আমার ফাইলসহ কাগজপত্র অফিস ষ্টাফ নুর ইসলামের কাছে গতকাল সোমবার জমা দেয়। এসময় আমার কাগজপত্রের অফিস ফাইল কি ভাবে নজরুলের কাছে তা নিয়ে নুরইসলাম কোন প্রশ্ন করেনি। এরপর এডি স্যার মাহাবুব রহমানের স্মরনাপন্ন হলে তিনি নজরুলের সামনে আমাকে বলেন, আপনি কাগজপত্র গুছিয়ে দিন। আমি লাইসেন্স পরীক্ষায় পাশ করিয়ে দিব। এরকম একই অভিযোগ করেন বাকেরগঞ্জের সাদ্দাম হোসেন। তিনি জানান, ৬ মাস আগে তার কাছ থেকে ৮ হাজার ৫শত টাকা নিয়ে নজরুল হয়রানী করছে। তার সাথে থাকা আল মামুন নামের আরেক জন অভিযোগ করেন সাত মাস আগে নজরুল ৯ হাজার টাকা নিয়েছে। ড্রাইভিং লাইসেন্স দিচ্ছেনা।
এ প্রসঙ্গে নজরুলের কাছে জানতে চাইলে তিনি কোন জবাব না দিয়ে নিরব থাকেন। বিআরটিএ অফিসে আবেদন করলে নজরুল কি ভাবে জেনে আবেদনকারিকে ফোন দেয়। তার কাছে কি ভাবে ফাইল থাকে এমন প্রশ্নের জবাবে ঝালকাঠি সহকারি বিআরটিএ কার্যালয়ের সহকারি পরিচালক মাহাবুব রহমান বলেন, সেটা আমি জানিনা। যারা অভিযোগ করেছে তাদের সাথে কথা হয়েছে। তাদের বলেছি নজরুলের সাথে যোগাযোগ না করতে।

Please Share This Post in Your Social Media




More News Of This Category




Mobile : 01712387795

Email:dailydurjatra@gmail.com
টপ
ঝালকাঠি পানি উন্নয়ন বোর্ড নির্বাহী প্রকৌশলীর নির্দেশে কার্যালয়ের গাছ কেটে নিয়ে বরিশালে যাবার সময় আটক ঝালকাঠি নার্সিং কলেজ অধ্যক্ষ-শিক্ষক দ্বন্ধে অচল অবস্থা পাল্টাপাল্টি অভিযোগ ঝালকাঠি জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সরকার নির্ধারিত মূল্যে মুরগি পেয়ে ক্রেতারা খুশি ঝালকাঠির বাজারে মুরগি উধাও ॥ ক্রেতারা হতাশ কৃষি বিপনন কর্মকর্তা কিছু জানেনা ঝালকাঠিতে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত ডিবি পুলিশের পৃথক অভিযানে ঝালকাঠিতে গাঁজা ও রাজাপুরে গাছসহ ২ বিক্রেতা আটক ঝলকাঠি সদর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার আগের তদন্ত প্রতিবেদন চাপা রেখেই আরেক দূর্নীতির তদন্ত শুরু ঝালকাঠি বিআরটিএ অফিসে লাইসেন্স আবেদনের ফাইল চলে যায় দালালের কাছে অভিযোগ অস্বিকার কর্তৃপক্ষের রাজাপুর ও কাঁঠালিয়ায় জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকীতে দোয়া অনুষ্ঠিত স্কুল ছাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ কাঠালিয়ায় মামলার প্রধান আসামী সাগর র‌্যাবের জালে আটক